কুষ্টিয়ায় আক্রান্তে ও উপসর্গে রেকর্ড ২১ মৃত্যু

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি:
কুষ্টিয়ায় গত একদিনে করোনা আক্রান্তে ১৫ জন ও উপর্গে ৬ জনসহ মোট ২১ জন মারা গেছে। জেলায় এটাই একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু।
শনিবার সকাল ৮টা থেকে রোববার সকাল ৮টা পর্যন্ত কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সর্বোচ্চ ১৯ জনের মৃত্যু হয়। এর মধ্যে ১৩ জন করোনায় এবং ছয়জন উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন।
রোববার করোনা ইউনিটে ১৯ জনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. এম এ মোমেন।
এছাড়া কুমারখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনায় একজন ও নিজ বাড়িতে করোনায় একজন মারা যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুমারখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. আকুল উদ্দিন।
গত একদিনে জেলায় পরীক্ষা বিবেচনায় করোনা শনাক্তের হার ৩১ দশমিক ৬৯ শতাংশ। নতুন করে শনাক্ত হওয়া ১৯৩ জনের মধ্যে কুষ্টিয়া সদরের ৩৬ জন, দৌলতপুরের ৪৫ জন, কুমারখালীর ৩১ জন, ভেড়ামারার ২৭ জন, মিরপুরের ২৩ জন এবং খোকসার ৩১ জন রয়েছেন।
বর্তমানে কুষ্টিয়ায় সক্রিয় করোনা রোগীর সংখ্যা ২ হাজার ৪৯৩ জন। তাদের মধ্যে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ২৬৫ জন এবং হোম আইসোলেশনে আছেন ২ হাজার ২২৮ জন।
করোনা প্রতিরোধে কুষ্টিয়ায় চলমান লকডাউন আগামী ৭ জুলাই মধ্যরাত পর্যন্ত চলবে বলে এক গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেছেন কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম।
গণবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কুষ্টিয়ায় চলমান লকডাউন আগামী ৭ জুলাই মধ্যরাত পর্যন্ত চলবে। এ সময় ওষুধ, নিত্য প্রয়োজনীয় মুদি দোকান, কাঁচাবাজার ছাড়া বাকি সবধরনের দোকান, শপিংমল বন্ধ থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x