মিয়ানমারের চার মন্ত্রীসহ ২২ জন নতুন মার্কিন নিষেধাজ্ঞায়

কালান্তর ডেস্ক:
মিয়ানমার সরকারের আরও চার মন্ত্রীসহ ২২ জনের ওপর নতুন নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে যুক্তরাষ্ট্র। গণতন্ত্রপন্থী অং সান সু চি সরকারকে অভ্যুত্থানের মাধ্যমে সরিয়ে ক্ষমতা দখলের প্রতিক্রিয়াসরূপ যুক্তরাষ্ট্র এ নিষেধাজ্ঞা জারি করে। শনিবার আল জাজিরা এ খবর জানিয়েছে।
এর আগে মিয়ানমারের সামরিক সরকারের বেশ কয়েকজন শীর্ষ নেতার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছিল। নতুন করে নিষেধাজ্ঞার আওতায় আসা মিয়ানমারের চার মন্ত্রী হলেন – তথ্যমন্ত্রী চিট নায়েঙ, বিনিয়োগ বিষয়ক মন্ত্রী অং নায়েঙ উ, শ্রম ও অভিবাসন বিষয়ক মন্ত্রী মিয়ন্ট কিয়াঙ এবং সামাজিক উন্নায়ন, ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিষয়ক মন্ত্রী থেট থেট খাইন। এ ছাড়া মিয়ানমারের স্ট্যাট অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ কাউন্সিলের তিন সদস্যও রয়েছেন এ নিষেধাজ্ঞার আওতায়। বাকি ১৫ জন হলেন মিয়ানমার সরকারের কর্মকর্তাদের স্ত্রী ও (প্রাপ্ত বয়স্ক) সন্তানরা।
এ নিষেধাজ্ঞা আরোপের মানে হচ্ছে, এসব ব্যক্তির কোনো সম্পদ যুক্তরাষ্ট্রে থাকলে তা স্থগিত হয়ে যাবে; অর্থাৎ পরবর্তী অনুমোদনের আগে এসব সম্পদ তারা ব্যবহার করতে পারবেন না। কোনো মার্কিন প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তি নিষেধাজ্ঞার আওতায় থাকা লোকদের সঙ্গে কোনো যোগাযোগ বা ব্যবসায়ীক সম্পর্ক রাখতে পারবেন না।
গত ফেব্রুয়ারিতে সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে অং সান সু চি’কে হটিয়ে ক্ষমতায় মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী। আটক হন সু চি ও তার সরকারের প্রেসিডেন্ট উইন মিন্ট। এর পর থেকেই মিয়ানমারে শুরু হয় সামরিক সরকার বিরোধী কঠোর আন্দোলন। এতে বহু লোক নিহত হন। আটক হন কয়েক হাজার জন। এরা সবাই সু চি সমর্থক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x