সাহায্যের আবেদন: টাকার অভাবে হার্টে রিং বসাতে পারছেনা দিনমজুর আলাউদ্দীন

আক্তার হোসেন, কেশবপুর :
কেশবপুরে টাকার অভাবে হার্টে রিং বসাতে পারছেনা আলাউদ্দীন (৫৮) নামে এক দিনমজুর। ডাক্তার বলেছে তার হার্ট ব্লক হয়ে গেছে, হর্টে রিং বসানো ছাড়া তাকে বাঁচানো সম্ভব নয়।
জানা গেছে, উপজেলার কাঁস্তা গ্রামের লুৎফার দফাদারের ছেলে পেশায় একজন দিনমজুর। পরের ক্ষেতে কামলা দিয়ে সেই টাকায় অনেক কষ্টে সংসার চলে তার। ৩ মেয়ের মধ্যে এখনও ২ মেয়ের বিয়ে হয়নি। বসতভিটা ছাড়া তার কোন কৃষি জমি নেই। একমাত্র তার একার উপর্জনে চলে ৪ জনের সংসার। গত শনিবার (১২ জুন-২১) নিজ বাড়ীতে হঠাৎ অসুস্থ্য হয়ে পড়লে পরিবারের লোকজন তাকে কেশবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এখানে তার অবস্থার অবনতি হলে ঐ দিনই তাকে নেওয়া হয় যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। সেখানে পরিক্ষা-নিরিক্ষা শেষে তার কর্তব্যরত ডাক্তার করোনারী ইউনিটের হার্ট বিশেষজ্ঞ ডাক্তার মুসফিকুর রহমান বলেছেন তার হার্ট ব্লক হয়ে গেছে। হার্টে রিং বসানো ছাড়া তাকে বাঁচানো সম্ভব হবে না। হার্টে রিং বসাতে হলে তাকে খুলনা অথবা ঢাকায় নিতে হবে। যার খরচ পড়বে প্রায় ৩ লক্ষ টাকা। একমাত্র ভিটেবাড়ী ছাড়া তার সহায়-সম্বল যা কিছু ছিল এই কয়দিনে চিকিৎসা নিতে সব বিক্রি করতে হয়েছে। এখন তার হার্টে রিং বসানোর জন্য প্রায় ৩ লক্ষ টাকা প্রয়োজন। তার হার্টে রিং বসানোর জন্য এত টাকা যোগাড় করা তার পক্ষে অসম্ভব। তিনি অন্যান্য সাধারন মানুষের মত আবার স্বাবাভিক জীবনে ফিরে আসতে চান। তার অর্থনৈতিক অক্ষমতার কারনে তার এই সংকটময় সময়ে চিকিৎসার জন্য সমাজের বিত্তবান দানশীল ব্যক্তি ও সরকারের কাছে আর্থিক সাহায্যের জন্য হাত বাড়িয়েছেন। হার্ট ব্লক হওয়া অসুস্থ্য আলাউদ্দীনের হর্টে রিং বসানোর জন্য সমাজের যে সকল বিত্তবান ব্যক্তিরা আর্থিক সাহায্য বা তার সাথে যোগাযোগ করতে চাইলে তার ব্যক্তিগত বিকাশ ও মোবাইল নম্বর ০১৮৩৫৪০১২১২ নান্বারে যোগাযোগ করার জন্য তিনি বিনিতভাবে অনুরোধ করেছেন। পাশাপাশি তিনি যাতে সুস্থ্য হয়ে আবার স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে পারেন তার জন্য সকলের কাছে দোওয়া চেয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x