কোটচাঁদপুরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস পালিত

কোটচাঁদপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি :
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস পালন করেছেন কোটচাঁদপুর উপজেলা আওয়ামীলীগ। শুক্রবার স্থানীয় দলীয় কার্যালয়ে দিবসটি পালন করেছেন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি নুরুল ইসলাম খান বাবলু। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কোটচাঁদপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ শাহাজান আলী। এ ছাড়া উপস্থিত ছিলেন,পৌর আওয়ামীলীগের আহবায়ক ফারজেল হোসেন মন্ডল,সদস্য ইসমাইল হোসেন,স্বেচ্ছা-সেবক লীগের আহবায়ক মাসুদ হোসেন। উপস্থিত নেতৃবৃন্দ প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার কারামুক্তি নিয়ে স্মৃতি চারন করেন। #

মটরের সুইস দিতে গিয়ে জীবন গেল সাব্দারের
কোটচাঁদপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি :
মটরের সুইস দিতে গিয়ে জীবন গেল নাইট গার্ড সাব্দার হোসেনের। শুক্রবার সন্ধ্যা রাতে এ ঘটনাটি ঘটেছে কোটচাঁদপুরের কুশনা গ্রামে। কুশনা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান জানান,সাব্দার হোসেন,পেশায় ছিলেন নাইট গার্ড। সে দীঘ দিন পুকুর পাহারার কাজ করেতেন। শুক্রবার সন্ধ্যা রাতে পুকুরের পানি দিতে মটরের সুইস দিতে যায়। এ সময় সে বিদুৎপিষ্ট হয়। এতে করে সাব্দার গুরুতর আহত হয়। এরপর স্থানীয়রা বুঝতে পেরে তাকে দ্রুত উদ্ধার করে কোটচাঁদপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। এ সময় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডাক্তার তাকে মৃত বলে ঘোষনা দেন। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক কৃষ্ণ কমল পাল সাগর জানান,এ রোগী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মৃত অবস্থায় নিয়ে আসেন। সাব্দার কুশনার বান্দাল বাজার সংগল্ন মান্নানের পুকুরে কাজ করতেন। সে ওই গ্রামের মৃত ইসমাইল হোসেনের ছেলে। #

গাঁজায় ফাঁসলেন মানিক
কোটচাঁদপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি :
গাঁজা দিয়ে ফাঁসাতে গিয়ে ফেসে গেলেন মানিক নামের এক যুবক। শুক্রবার কোটচাঁদপুরের রুদ্রপুর স্কুল পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।
ভুক্তভোগী জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, রুদ্রপুর গ্রামের শরিফুলের ছেলে হারুন কয়েক দিন আগে বকসিপুর গ্রামের লাল নামের এক ছেলেকে মারপিট করে। এ সময় তাঁর কাছে থাকা মোবাইলও তারা নিয়ে যায়। এ বিষয়ে ওই ছেলে থানায় অভিযোগ করেন ওই ছেলে। এ অভিযোগ তদন্তে এসে পুলিশ আমার কাছে ঘটনাটি জানতে চাই। আমি সত্য কথা বলি পুলিশকে। এতে করে ক্ষিপ্ত হয় তারা। এর প্রতিশোধ হিসেবে হারুনের কথামত মানিক কয়েক পুরিয়া গাজা রাখে আমার দোকানে। এর কিছুক্ষন পর পুলিশ আসে আমার দোকানে। উদ্ধার করে গাজা। আটক করে নিয়ে যায় আমাকে থানায়। এরপর পুলিশের কাছে ঘটনার রহস্য বের হয়ে যায়। এ সময় আটক করেন মানিককে। পরে আমার জিজ্ঞাসাবাদ করে ছেড়ে দেন পুলিশ। মানিককে শনিবার আদালতে পাঠিয়েছেন পুলিশ। সে ওই গ্রামের আইনাল হোসেনে ছেলে। এ ব্যাপারে কোটচাঁদপুর থানার (ভারপ্রাপ্ত) কর্মকর্তা মঈন উদ্দিন জানান,ফাসাতে চেয়েছিল। মানিককে সন্দেহ ভাজন মামলায় চালান দেয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x