পাইকগাছায় ঘূর্ণিঝড় ইয়াসে উপজেলা প্রশাসনের পাশাপাশি আনসার ও ভিডিপির ভুমিকা!

এফ.এম বদিউর জামান :
পাইকগাছায় ঘূর্ণিঝড় “ইয়াস” এর প্রভাবে প্রবল বৃষ্টি এবং জোয়ারের আছড়ে পড়া ঢেউয়ে কপোতাক্ষ নদের বাঁধ ভেঙ্গে লোকালয় পানি প্রবেশের সময় উপজেলা প্রশাসনের পাশাপাশি আনসার ও ভিডিপির সদস্যরা দিন রাত পরিশ্রম করে চলেছেন। তাদের এ ভুমিকা সাধারণ জনগণ ও উপজেলা প্রসাশন প্রসংশা করেছেন। জানা যায়, সম্প্রতি ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে নদীতে প্রবল জলস্বাষে পাইকগাছা উপজেলার ১০ টি ইউনিয়ন ও ১ টি পৌরসভায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের বাঁধ ভেঙ্গে মৎস্য লীজ ঘের ভেসে যাচ্ছে এমনকি মানুষের গরু ছাগল, ঘর বাড়ি তলিয়ে যাচ্ছে ঠিক সেই মুহূর্তে উপজেলা আনসার ও ভিডিপি প্রশিক্ষক মোঃ আলতাফ হোসেনের নেতৃত্বে তার সদস্যদের নিয়ে এসব বাঁধের ভাঙন ঠেকাতে নিজেই কাদা পানিতে নেমে কাজ করে চলেছেন। খুলনা জেলার পাইকগাছা উপজেলাতে ১০টি ইউনিয়ন ও ০১টি পৌরসভায় ১১টি কুইক রেসপন্স টিমে প্রতিটি টিমে ২৭ জন করে মোট ২৯৭ জন সদস্য কাজ করছেন ও অদ্যবধি এখনো কাজ করে চলেছেন এ কর্মকর্তা। দুর্যোগের পূর্বে ব্যাপক মাইকিং থেকে শুরু করে লোকজনকে আশ্রয় কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়াসহ ত্রাণ বিতরণে সহযোগিতা করা এবং প্রবল বৃষ্টি ও জোয়ারের পানিতে ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধ মেরামতে বালুর বস্তা ভরে বাঁধের ভাঙন ঠেকানোসহ নানামুখী ভুমিকা পালন করেন বলে কপিলমুনি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কওসার আলী জোয়ারদার জানান। তিনি আরো বলেন কপোতাক্ষ নদের ভাঙ্গন রোধ করতে আনসার ও ভিডিপির কপিলমুনি ইউনিয়ন লিডার নূর ইসলাম গাজী, ইউনিয়ন দলনেত্রী রাজিয়া সুলতানা, কোম্পানি কমান্ডার আবু হানিফ, কমান্ডার তাজউদ্দীন, রোকনুজ্জামানসহ প্রায় ৩০ জন আনসার ও ভিডিপির সদস্যগণ দিনভর কাজ করেছেন।উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবিএম খালিদ হোসেন সিদ্দিকী জানান উপজেলা আনসার ও ভিডিপি সদস্যদের সাহসী ও সময়উপোযোগী কাজের প্রসংশা করে বলেন, আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা আলতাফ হোসেন সহ আনসার ও ভিডিপির সদস্যগণ দুঃসময় আনসার ভিডিপি সদস্যদের ভুমিকা নিঃসন্দেহে প্রসংশার দাবিদার। পাইকগাছা থানার ওসি এজাজ শফী জানান, দূর্যোগের সময় তাদের ভুমিকা দেখে আমি নিজেও সাধারণ মানুষের সাথে ছিলাম। পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী ফরিদ আহমেদ বলেন , পাউবোর বাঁধ রক্ষার দায়িত্ব আমাদের, সেখানে উপজেলা আনসার ও ভিডিপির কর্মকর্তা আলতাফ হোসেন তার সদস্যদের নিয়ে বাঁধ রক্ষা করার ভুমিকা নিঃসন্দেহে প্রসংশার দাবীদার। আনসার ও ভিডিপির খুলনা জেলা কমান্ড্যান্ট হাফিজ আল মোয়াম্মার গাদ্দাফি বলেন, আমার এ কর্মকর্তার মতো অন্যান্য সদস্যরা এ রকম ভুমিকা রাখতে পারে নি। তার এ ভুমিকা আমার উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে জানাবো।

পাইকগাছায় দায়ীক দিয়ে ডেলিভারী করাকালে নবজাতকের মৃত্যু
স্টাফ রিপোর্টার :
পাইকগাছায় অন্তঃসত্ত্বা এক গৃহবধুকে নিজ বাড়িতে দায়ীক দিয়ে সন্তান প্রস্রাবকালে গলা ছিড়ে নবজাতকের করুন মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলার মটবাটী গ্রামের আসাদুল গাজীর স্ত্রী রেশমা বেগম সন্তান প্রস্রাব যন্ত্রনায় ছটফট করছিল। এসময় উপজেলার হরিঢালীর নোয়াকাটি গ্রামের মৃত আবু তাহের সরদারের স্ত্রী সুফিয়া বেগম (৬৫) কে বাড়ীতে ডেকে আনা হয়। এ সময় দায়ীক সুফিয়া বেগম নবজাতকের মাথা ছিড়ে ফেললে তার মৃত্যু হয়। মারাত্মক অসুস্থ নবজাতকের মা রেশমাকে হাসপাতালে নিলে গাইনী ডাঃ সুজন কুমার সরকারের চিকিৎসায় সে সুস্থ হয়ে ওঠে বলে ডাক্তার জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x