নগরীতে জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন ২০২১ সফল করার লক্ষ্যে সভা

বিজ্ঞপ্তি
খুলনা মহানগরীতে জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন ২০২১ সফল করার লক্ষ্যে এক অবহিতকরণ ও পরিকল্পনা সভা রবিবার সকালে শের ই বাংলা রোডস্থ নগর স্বাস্থ্য ভবনে অনুষ্ঠিত হয়। খুলনা সিটি কর্পোরেশনের শিক্ষা, স্বাস্থ্য, পরিবার পরিকল্পনা ও স্বাস্থ্যরক্ষা ব্যবস্থা স্থায়ী কমিটির সভাপতি মোঃ মনিরুজ্জামান-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের জাতীয় পুষ্টি সেবা কার্যক্রমের আওতায় জনস্বাস্থ্য পুষ্টি প্রতিষ্ঠানের সহযোগিতায় কেসিসি’র স্বাস্থ্য বিভাগ এ সভার আয়োজন করে।
প্রধান অতিথির বক্তৃতায় সিটি মেয়র বলেন, শিশুদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইনের গুরুত্ব অপরিসীম। সুতরাং করোনা মহামারীর বিষয়টি বিবেচনাপূর্বক সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে মহানগরী এলাকায় জাতীয় এ ক্যাম্পেইন সুষ্ঠুভাবে বাস্তবায়ন করতে হবে। ক্যাম্পেইনের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের ওপর গুরুত্বারোপ করে তিনি শিশুদের সুরক্ষায় সরকারের পাশাপাশি অভিভাবক ও শিক্ষকদের যত্নশীল হওয়ার আহবান জানান।
উল্লেখ্য, আগামী ৫ জুন থেকে ১৯ জুন পর্যন্ত দেশব্যাপী ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন পালিত হবে। এ ক্যাম্পেইনের আওতায় খুলনা মহানগরী এলাকার ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী ১২ হাজার ৬’শ জন শিশুকে নীল রঙের ক্যাপসুল এবং ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সী ৯৭ হাজার ১’শ ৫৩জন শিশুকে লাল রঙের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সভায় মহানগরী এলাকাকে চারটি জোনে ভাগ করে ১শ ৯০টি ইপিআই কেন্দ্র স্থাপন এবং কেন্দ্র সমূহে ৬২জন সুপারভাইজারের তত্ত্বাবধানে ১ হাজার ৪’শ ২০ জন স্বেচ্ছাসেবী নিযুক্ত করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।
সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন কেসিসি’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (অতিরিক্ত সচিব) পলাশ কান্তি বালা এবং স্বাগত বক্তৃতা করেন প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. এবিএম আব্দুল্লাহ। অন্যান্যের মধ্যে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর-খুলনার সহকারি পরিচালক (প্রশাসন) ডা. মোঃ মনজুরুল মুরশিদ, ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. এস এম কামাল হোসেন, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের উপপরিচালক পেয়ারা বেগম, ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশনের মেডিকেল অফিসার (সার্ভিল্যান্স এন্ড ইমুনাইজেশন) ডা. সৈয়দ আহসান রিজভি, সদর থানা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শেখ মোঃ নুরুল ইসলাম, কেসিসি’র স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. স্বপন কুমার হালদার, সহকারি স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ শরীফ শাম্মিউল ইসলাম প্রমুখ সভায় মতামত ব্যক্ত করেন।
দুপুরে সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক নগর ভবনের শহীদ আলতাফ মিলনায়তনে কেসিসি’র কঞ্জারভেন্সি বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সাথে এক সভায় মিলত হন। আসন্ন বর্ষা মৌসুমে জলাবদ্ধতা নিরসনে প্রধান প্রধান ড্রেনসমূহ পরিস্কার এবং ডেঙ্গু ও চিকুনগুণিয়া প্রতিরোধে মশক নিধন কার্যক্রম জোরদার করার লক্ষ্যে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় সিটি মেয়র বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার সুদৃষ্টি থাকায় খুলনা মহানগরীতে উন্নয়নের অগ্রযাত্রা শুরু হয়েছে। নগরীর প্রায় প্রত্যেকটি ওয়ার্ডে উন্নয়ন কাজ চলছে উল্লেখ করে তিনি বড় বড় ড্রেনসমূহে পনি নিস্কাশনের প্রতিবন্ধকতা অপসারণের নির্দেশ দেন। এছাড়া মশাবাহিত রোগ ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়ার সংক্রমণ প্রতিরোধে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সতর্ক থাকারও নির্দেশ দেন। এ ক্ষেত্রে কারো দয়িত্বে অবহেলা পরিলক্ষিত হলে দোষীদের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
কেসিসি’র প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা প্রকৌশলী মোঃ আব্দুল আজিজ, কঞ্জারভেন্সি অফিসার প্রকৌশলী মোঃ আনিসুর রহমান, সহকারী কঞ্জারভেন্সি অফিসার নুরুন্নাহার এ্যানি, মো: আব্দুর রকিব, এস এম আব্দুল ওয়াদুদ, মোল্লা মারুফ রশীদ, শেখ হাফিজুর রহমান, মোঃ জিয়াউর রহমানসহ ওয়ার্ডের পরিদর্শকগণ সভায় উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x